করোনায় ফ্লাইটের ভাড়ার ভার সইতে পারছে না প্রবাসীরা

0
4
views

করোনাভাইরা’সের প্রভাবে ফ্লা’ইট ব’ন্ধ থাকায় বাংলাদেশে আটকা পড়েছেন হাজারও আমিরাত প্রবাসী। অন্যদিকে করোনায় বিপর্যস্ত হয়ে দে’শে যাওয়ার অ’পেক্ষায় রয়েছে অসংখ্য বাংলাদেশি।প্রায় তিনমাস থেকে বাংলাদেশের সাথে স্বাভাবিক ফ্লাইট বন্ধ রয়েছে। বিশেষ ফ্লা’ইটে কিছু সংখ্যক লোক দুবাই থেকে ঢাকা যাচ্ছেন, ঢাকা থেকে দুবাই আসছেন। আমিরাত সরকা’রের অনুমতি যারা পেয়েছেন তারাই মূলত এখন আসতে পারছে।

বিশেষ ফ্লাইটে করে ভিজিট ভিসায় এসে আট’কেপড়া বাংলাদেশিরা চড়া দামে টিকিট ক্রয় করে দেশে ফেরত যাচ্ছেন। এসব বিশেষ ফ্লা’ইটের মাত্রাতিরিক্ত টিকিটের মূল্য নিয়েও প্রবাসী’দের মধ্যে চাপা ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। করোনাকালীন বিপর্যয়ে বিমান ভাড়ার ভারে নাজেহাল প্রবাসীরা।

স্বাভাবিক ফ্লাইট চালু হলে টিকিটে’র মাত্রাতি’রিক্ত দাম কমবে বলে প্রবা’সীরা মনে করছেন।গত ৬ জুলাই থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ার’লাইন্সের ফ্লাইট চালু হওয়ার কথা থাকলেও তা হয়নি। আগামী ১৩ জুলাই থেকে আমিরাত রুটে বিমা’ন ফের পরিচালনার সুযোগ পেয়েছে। কিন্তু এসব ফ্লা’ইটের ভাড়া স্পে’শাল ফ্লাইটের মতো।

শুধুমাত্র দুবাই থেকে যাওয়ার ভাড়াই ২ হাজার দিরহামের (৪৩ হাজার টাকা) অধিক। হাজার দিরহামের বে’তনের সাধারণ শ্রমিক কিভাবে শুধুমাত্র যাওয়ার ভাড়া ২ হাজার দিরহাম বহন করবে? তাছাড়া বর্তমান এই বৈশ্বিক ম’হা’মারির দুঃসময়ে কর্মহীন হয়ে পড়েছেন অসংখ্য প্রবাসী।

চট্টগ্রাম জেলার মোহাম্মদ আইয়ুব আলী কোম্পানি থেকে ক্যান্সে’ল হয়ে’ছেন প্রায় এক মাস পূর্বে। টিকিটের চড়া দামের কারণে দেশে যেতে পারছেন না, আবার কর্মহীন অবস্থায় এখানে থাকাটাও অসম্ভব। এমতাবস্থা’য় তিনি দেশ থেকে টাকা এনে ২২০০ দিরহাম (প্রায় ৪৮ হাজার টাকা) দিয়ে টিকিট কেটে বিশেষ ফ্লাইটে দেশে যান।

একই ভাবে ফেনীর রুবেল মিয়া ২ হাজার দিরহাম দিয়ে টিকিট কেটে ছুটিতে দেশে যান। রুবেলের কোম্পানিতে বর্তমা’নে কাজ নেই তাই ছুটি দিয়েছে। এভাবে অসংখ্য প্রবাসী টি’কিটের মা’ত্রাতিরিক্ত ভাড়ার কারণে নাজেহাল। করোনায় সব’চেয়ে বেশি বিপর্য’স্ত প্র’বাসী ও প্রবাসীর পরিবার। প্র’বাসীদের এই দুঃস’ময়ে বাং’লাদেশ সর’কার প্র’বাসীদের পাশে দাঁড়াবে এটাই প্রত্যাশা। বিমান ভাড়ায় ভর্তুকি দিয়ে হলেও স্থিতি’শীল করার দাবি লাখো প্রবাসীর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here