ভারতীয়দের প্রবেশে নিষেধা’জ্ঞা জারি করল কুয়েত, কয়েক লক্ষের কর্মহীন হওয়ার আশ’ঙ্কা

0
3
views

এবার ভারত-সহ এশিয়ার বেশ কয়েকটি দেশের নাগরিকদের উপরে নিষেধা’জ্ঞা জারি করল কুয়েত ৷ এর ফলে কয়েক লক্ষ ভার’তীয়ের কর্ম’হীন হয়ে পড়ার আ’শ’ঙ্কা দেখা দিয়েছে৷ ভারত ছাড়াও পাকিস্তান, বাংলাদেশ, নেপাল, শ্রীলঙ্কা, ইরান এবং ফিলিপি’ন্সের নাগরিকদের প্রবেশের উপরে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে কুয়েত৷ সাড়ে তিন মাস পর আন্তর্জাতিক বিমান পরিষেবাও শুরু করছে কুয়েত৷

কুয়েতে এই বিপুল সংখ্যক ভারতীয় নাগরিক কর্মসূত্রে বসবাস করেন৷ তাঁদের একটা বড় অংশই অবশ্য করোনা অতিমা’রির জেরে দেশে ফিরে এসেছেন৷ আবার এমন অনেকে রয়েছেন, যাঁদের ভিসার মেয়াদ ফুরিয়ে এসেছে ৷ অনেকে পরিবার নিয়েও কুয়েতে থাকেন৷ এঁদের সবারই ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত৷ ভারতীয় বিদেশমন্ত্রক কুয়েতের এই সিদ্ধান্ত সম্পর্কে অবগত৷ আলো’চনার মাধ্যমে স’মস্যার সমাধানের চেষ্টা করা হচ্ছে ৷

কুয়েতের ইন্ডিয়া সাপোর্ট গ্রুপের সভাপতি রাজপাল ত্যাগি আশঙ্কা প্রকাশ করে জানি’য়েছেন, ছুটি নিয়ে যাঁরা দেশে ফিরেছেন, তাঁরা এবার কুয়েতে না ফিরতে পারলে সব সংস্থাই সেই সমস্ত কর্মী’দেরল বরখা’স্ত করবে৷

কুয়েতে কর্মরত ভারতীয়দের জন্য সেদেশে নতুন আইন তৈরি হচ্ছে৷ নতুন আইন অনুযায়ী, কুয়েতে কর্মরত ভারতীয়দে’র সর্বোচ্চ সংখ্যা ১৫ শতাংশে বেঁধে রাখার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে৷ এই আইন লাগু হলে সাড়ে আট লক্ষ ভারতীয়কে কুয়েত থেকে ফিরে আসতে হতে পারে৷ নতুন আইন অনু’যায়ী, কুয়েতে সংস্থাগুলোয় কত সংখ্যক বিদেশি নাগরিককে চাকরি দেওয়া যাবে, তার নির্দিষ্ট সংখ্যা বেঁধে দেওয়া হবে৷ কুয়ে’তের না’গরিক এবং বি’দেশিদের মধ্যে ভারসাম্য রাখতেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কুয়েত সরকার৷

কুয়েতে কর্মরত ভারতীয়দের সংখ্যা ১৫ শতাংশে বেঁধে রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷ এর পাশাপাশি শ্রীলঙ্কা, ফিলিপিন্সের মতো দেশগু’লির জন্য ১০ শতাংশ সংরক্ষণ রাখার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে৷ আর পাকিস্তান, বাংলাদেশ, নেপাল, ভিয়েতনামের নাগরিকদের জন্য ৫ শতাংশ সংরক্ষণ রাখা হয়েছে৷

কুয়েতে প্রায় দশ লক্ষ ভারতীয় কর্মসূত্রে বসবাস করেন৷ নতুন আইন চালু হলে তার মধ্যে সাড়ে আট লক্ষকেই ফেরত আসতে হতে পারে৷ কুয়ে’তের মোট জনসংখ্যা ৪৫ লক্ষ৷ তার মধ্যে কুয়েতের নাগরিক মাত্র ১৩ থেকে সাড়ে ১৩ লক্ষ৷ জন’সংখ্যার সিংহ’ভাগই ভা’রত সহ অন্যান্য দেশগুলির নাগরিক৷

কুয়ে’ত ভারতীয়’দের প্রবেশে যে নিষেধা’জ্ঞা জারি করেছে তার পিছনে বিমান পরি’ষেবা শুরু করা নিয়ে টানাপো’ড়েনও অন্য’তম কারণ হতে পারে৷ কুয়েতের বিমান সংস্থাগু’লি ভারতে বিমান পরিষেবা শুরু করতে আগ্র’হী৷ কিন্তু এই মু’হূর্তে সেই অনুমতি দিচ্ছে না ভারত৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here